Hotline: +8801729070571
Welcome to the official website of BRAC Institute of Skills Development (BRAC-ISD)

স্বপ্ন পূরণের পথে আল-আমীন

কুমিল্লার ছেলে আল-আমীন। বয়স আঠার বছর। চার ভাই, দুই বোন আর মা-বাবার সঙ্গে আল-আমীন বেড়ে ওঠে মনে অপার স্বপ্ন নিয়ে। আল-আমীন মনে মনে স্বপ্ন দেখে বড় হয়ে ইঞ্জিনিয়ার হবে। স্বাধীনভাবে কাজ করবে। দেশের সেবা করবে। আল-আমীন ছোটবেলা থেকে খুবই স্বধীনচেতা। সে পরাধীন থাকতে চায় না। তাই চাকরি তার অপছন্দ। তার কাছে চাকরি মানে অন্যের অধীন থাকা। অন্যের নিদের্শ নেমে চলা। আল-আমীর চাকরির বাধা ধরা নিয়ম থেকে বেরিয়ে এসে নিজে স্বাধীনভাবে কিছু করার স্বপ্নে বিভোর থাকে।

এস.এস.সি পরীক্ষার সময়ে আল-আমীনের পিতার মৃত্যু হয়। মাথার উপর আকাশ ভেঙ্গে পরে। অচিরেই আল-আল-আমীনের স্বপ্ন ভঙ্গ হয়। আল-আমীন ধৈর্য্য হারায় না। সে এস.এস.সি. পরীক্ষা দেয়। পাশ করে। এইচ.এস.সি. পাসও করে। ইঞ্জিনিয়ারিংসহ নানান জায়গায় ভর্তি পরীক্ষা দেয়। কিন্তু ইঞ্জিনিয়ারিং-এ ভর্তি হওয়া আর হলো না। এবার আল-আমীন কিছুটা দিশেহারা হয়ে পড়ে। আল-আমীন ঢাকা চলে আসে। সালটা হলো ২০১৩ ইংরেজি। আল-আমীন সরকারি বাংলা কলেজে অর্থনীতির অনার্সে ভর্তি হয়। লেখাপড়া করছে ঠিকই কিন্তু স্বপ্নভঙ্গের বেদনা ওকে কুড়ে কুড়ে খাচ্ছে। আর ভাবছে কি করে স্বপ্ন পূরণের পথে যাত্রা করা যায়।

আল-আমীন একদিন সত্যি সত্যি আলোর দিশা পেয়ে যায়। আল-আমীনের বাসায় আসেন বড় ভাইয়ের এক বন্ধু। তিনি ব্র্যাক ইনস্টিটিউট অব স্কিলস ডেভেলপমেন্ট (BRAC-ISD)এর একজন অভিজ্ঞ প্রশিক্ষক। তিনি নানান আলাপ প্রসঙ্গে আল-আমীনকে ব্র্যাক ইনস্টিটিউট অব স্কিলস ডেভেলপমেন্ট (BRAC-ISD)এ ভর্তি হতে বলেন। আল-আমীন যেন হাতে চাঁদ পেয়ে গেল। ইঞ্জিনিয়ারিং-এ ভর্তি হতে পারল না তাতে কি। এ বিষয়ে লেখাপড়া করার বিকল্প সুযোগ তো পেয়ে গেছে। আল-আমীন পরিবারের সঙ্গে কথা বলে ব্র্যাক ইনস্টিটিউট অব স্কিলস ডেভেলপমেন্ট (BRAC-ISD)এ রেফ্রিজারেশন এ্যান্ড এয়ারকন্ডিশনিং কোর্সে প্রথম ব্যাচে ভর্তি হয়ে গেল। হাতে কলমে কাজ শিখতে পারলে স্বপ্নপূরণ সম্ভব হবে। আল-আমীন এখানে তিনমাস মনযোগ সহকারে রেফ্রিজারেশন এ্যান্ড এয়ারকন্ডিশনিং বিষয়ে হাতে কলমে কাজ শিখে। সফলভাবে প্রশিক্ষণ শেষ করার পর ব্র্যাক ইনস্টিটিউট অব স্কিলস ডেভেলপমেন্ট (BRAC-ISD) আল-আমীনকে একটা ওয়ার্কশপে চাকরি প্রদান করে। এর কিছুদিন পর ব্র্যাক ইনস্টিটিউট অব স্কিলস ডেভেলপমেন্ট (BRAC-ISD) এর সহযোগিতায় আল-আমীনের আরেকটা চাকরি হয় কামাল রিয়েল এস্টেট কোম্পানিতে। এখানে তার বেতন ধরা হয় ১৫ হাজার টাকা।
আল-আমীন পরিবারে কিছু টাকা সাহায্য করে। বাকী টাকা সঞ্চয় করে। তার কথা, আমি এখন আবার আমার ছোটবেলার স্বপ্নে ফিরে গেছি। আল-আমীন বেশিদিন চাকরি করতে চায় না। সে নিজেই দোকান দেবে। ব্যবসা করবে। এখন সে কাজের সঙ্গে সঙ্গে ব্যবসা শিখছে। ৫/৬ বছর চাকরি করবে, তারপর ফিরে যাবে কুমিল্লা। নিজ শহরে গিয়ে ব্যবসা শুরু করবে। লোক রাখবে। দেশের মানুষের সেবা করবে। নিজের পায়ে দাঁড়াবে। আল-আমীন বলে, নিজের ব্যবসায় নিজের মতো করে মানুষের সেবা করতে পারব। আল-আমীন বলে, ব্র্যাক ইনস্টিটিউট অব স্কিলস ডেভেলপমেন্ট (BRAC-ISD)এর সহযোগিতায় আমি আমার স্বপ্ন পূরণের পথে এগিয়ে যাচ্ছি।